মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

মহিলা বিষয়ক

 

কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মাদার সহায়তা তহবিল কর্মসূচি

জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা/প্রোগ্রাম অফিসার

 

কোন প্রতিষ্ঠানে বা নিজ গৃহে কর্মরত দরিদ্র  গর্ভবতী/দুগ্ধদায়ী মাকে নির্ধারিত ফরমে জেলা কমিটি/ সরাসরি জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার নিকট আবেদন করতে হয়। অথবা ওয়ার্ড কমিশনার, মহিলা ওয়ার্ড কমিশনার অথবা নিবন্ধিত মহিলা সমিতিসমূহের নিকট হতে নিম্নোক্ত শর্ত সাপেক্ষে সম্ভাব্য উপকারভোগীদের তালিকা দায়িত্ব প্রাপ্ত  সিবিও/এনজিও সংগ্রহ করে থাকেন । শর্তগুলো হলো: - বয়স কমপক্ষে ২০ বা তার উর্ধ্বে হতে হবে, মাসিক  মোট আয় ৫০০০/-টাকা অথবা তার নিম্নে এবং অন্য কোন আয়ের উৎস নেই, বিজিএমইএ/ বিকেএমইএ এর আওতাভূক্ত নির্ধারিত প্রতিষ্ঠানে চাকুরিরত দরিদ্র, দুঃস্থ দুগ্ধদায়ী এবং গর্ভবতী মহিলা। ৬১টি জেলা সদর অথবা পরবর্তীতে সম্প্রসারিত ৬৪টি জেলা সদরস্থ পৌরসভা/সিটি কর্পোরেশনের(কর্মসূচির জন্য নির্ধারিত এলাকা)স্থায়ী বাসিন্দা অর্থাৎ ভোটার হতে হবে এবং সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলারের প্রত্যয়ন থাকতে হবে।দরিদ্র প্রতিবন্ধী কর্মজীবী গর্ভবতী/ দুগ্ধদায়ী মা ভাতা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন। প্রথম ও দ্বিতীয় গর্ভের সন্তান গর্ভাবস্থায় বা প্রসবের সময় হতে সর্বোচ্চ ২৪ মাসের জন্য এক ব্যক্তি একবার বরাদ্দপাবেন। তৃতীয় বা তৎপরবর্তী সন্তান জন্মদানের জন্য কোন কর্মজীবী মা এই ভাতা পাওয়ার যোগ্য হবেন না। তবে প্রথম ও দ্বিতীয় গর্ভের সন্তান গর্ভাবস্থায় অথবা জন্মের দুই বৎসরের মধ্যে মারা গেলে তৃতীয় গর্ভকাল বিবেচনা করা যাবে। কোন কর্মজীবী মায়ের একাধিক বিবাহ হলেও একই নিয়ম প্রযোজ্য। সন্তান জন্মের দুই বৎসরের মধ্যে মারা গেলে সংশ্লিষ্ট মা ২৪ মাস পূর্ণ হওয়া পর্যন্ত ভাতা পাবেন। নির্বাচিত মা দুই বৎসরের মধ্যে মারা গেলে ভাতা বন্ধ হবে। সন্তান জীবিত থাকলে বৈধ অভিভাবক ভাতা পাবেন। প্রাথমিক তালিকা সংগ্রহের সময় আবেদন পত্রের সাথে যে সকল সনদ সংযুক্ত থাকতে হবে তা হল: স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ বিভাগ অথবা রেজিস্টার্ড ডাক্তার কর্তৃক প্রদত্ত প্রথম /দ্বিতীয় সন্তানের প্রত্যয়ন, স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ বিভাগ অথবা রেজিস্টার্ড ডাক্তার কর্তৃক প্রদত্ত প্রেগনেন্সি সনদ, স্থানীয় নাগরিকত্বের সনদ, বয়স প্রমানের প্রত্যয়ণপত্র, নির্ধারিত প্রতিষ্ঠানে চাকুরিরত মর্মে প্রত্যয়নপত্র, পৌর এলাকার বাসিন্দা এই মর্মে ওয়ার্ড কাউন্সিলরের প্রত্যয়ন।

প্রাপ্ত আবেদনপত্র  ও এনজিও/সিবিও কর্তৃক পূরণকৃত আবেদন ফরমসহ জেলা কমিটিতে উপস্থাপন করতে হয়। জেলা কমিটি উক্ত তালিকার সম্ভাব্য উপকারভোগীদের সরেজমিনে পরিদর্শন করে নামের তালিকা চূড়ান্ত করে থাকেন।

 

চূড়ান্ত তালিকানুযায়ী নির্বাচিত উপকারভোগীর নামে ভাতা পরিশোধ বহি প্রস্তুত করে বিতরণ করা হয়ে থাকে।

 

৩ মাস ১০ দিন;

বিনামূল্যে

“কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মাদার সহায়তা তহবিল কর্মসূচি” বাস্তবায়ন নীতিমালা, ২০